ইসলামব্রেকিংস্লাইডার

লাব্বাইক ধ্বনিতে মুখরিত আরাফার ময়দান

আজ ৯ই জিলহজ্ব
মিনা থেকে হাজিরা বাসে করে পায়ে হেটে হাজির হবেন আরাফার ময়দানে । হাজি সাহেবরা আরাফার ময়দানে সন্ধ্যা পর্যন্ত অবস্থান করবেন।হজ ইসলামের পঞ্চম রোকন। প্রত্যেক আর্থিক ও শারীরিক সামর্থ্যবানের ওপর হজ ফরজ। আর হজের অন্যতম আনুষ্ঠানিকতা হলো আরাফার ময়দানে অবস্থান, খুতবা শ্রবণ, দোয়া ও ইস্তিগফারে দিনযাপন করা।
আরাফার ময়দানের বিশেষ একটি দোয়া আছে তাহলো-
উচ্চারণ : ‘লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু ওয়াহদাহু লা শারিকালাহু, লাহুল মুলকু ওয়া লাহুল হামদু ওয়া হুওয়া আ’লা কুল্লি শাইয়িন ক্বাদির।’
এছাড়াও যে কোন দোয়া পড়তে পারেন।আরাফার ময়দানে অবস্থান হজের অন্যতম আমল। আরাফার ময়দান মক্কা থেকে ২২ কিলোমিটার দূরে অবস্থিত। এখানেই হজরত রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম এক ঐতিহাসিক ভাষণ প্রদান করেছিলেন। যা ইতিহাসে ‘বিদায় হজের ভাষণ’ হিসেবে পরিচিত।

এ ময়দানের এক পাশে রয়েছে জাবালে রহমত। যেখানে দাঁড়িয়ে বিশ্বনবি সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম সর্বশেষ বিদায় হজের ভাষণ প্রদান করেছিলেন। ইসলামকে পরিপূর্ণ জীবনব্যবস্থা হিসেবে ঘোষণা দিয়েছিলেন।

প্রত্যেক মুসলিমের দায়িত্ব হচ্ছে, জিলহজ মাসের প্রথম দশ দিনে বেশি বেশি নেক আমল করা। বিশেষ করে আরাফার দিবস তথা জিলহজ মাসের নবম দিনে। কেননা দিনটি আল্লাহর নিকট অন্য দিনগুলোর তুলনায় অধিক প্রিয়। বছরের অন্য দিনের আমলের সওয়াবের চেয়ে এদিনের আমলের সওয়াব দ্বিগুণ। তেমনিভাবে এদিনের আমলের সওয়াব আল্লাহর রাস্তায় ব্যয়কারীদের (মুজাহিদ) থেকেও উত্তম। সুতরাং দিনটির গুরুত্ব উপলব্ধি করে আমাদের করণীয় হলো-
ক. খালিসভাবে তওবা করে আল্লাহ দিকে ধাবিত হওয়া।
খ. সৎ কাজের প্রতি মনে আগ্রহ তৈরী করা। যে কাজ করলে আমল কবুল হয় না, সেসব কাজ থেকে দূরে থাকা। অতীতের খারাপ কাজের জন্য আল্লাহর কাছে ক্ষমা চাওয়া।
এ বছর হজযাত্রী ও হজ ব্যবস্থাপনা কমিটির সদস্যসহ মোট ১ লাখ ২৭ হাজার ২৭৫ জন সৌদি আবর গেছেন। হজ অফিসের তথ্য অনুযায়ী, চলতি বছরের হজ ফ্লাইট শুরু হয় গত ১৪ জুলাই। বিমানের হজ ফ্লাইট শেষ হয় গত বুধবার।

ফিরতি হজ ফ্লাইট আগামী ২৭ আগস্ট শুরু হয়ে চলবে ২৬ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত।

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

আরও দেখুন...

Close
Close