ব্রেকিংমধ্যপ্রাচ্যমুসলিম বিশ্বস্লাইডার

বিশ্বের কাছে অতি পরিচিত নাম কাতার

কাতারের ওপর জল, স্থল ও আকাশপথে আরব দেশগুলো কূটনৈতিক ও অর্থনৈতিক অবরোধ আরোপ করেছে তা প্রায় এক মাসের অধিক সময় হতে চলেছে। তা সত্ত্বেও তেল গ্যাসসমৃদ্ধ উপসাগরীয় এই ছোট্ট দেশটির চোখ ঝলসানো মল ও বিলাসবহুল হোটেলগুলোতে অবরোধের চিহ্ন খুব কমই চোখে পড়ছে। সম্প্রতি সৌদি জোটের অবরোদ্ধের কারনে অভ্যন্তরীণ চাহিদা মেটাতে মুদি দোকানগুলো ইউরোপ ও তুরস্কের মাংস ও খাদ্যদ্রব্ধাধী মার্কেট দখল করে নিয়েছে। তাছাড়াও মাত্র এক মাস আগে অস্ট্রেলিয়া থেকে দেশটির প্রধান বন্দর দিয়ে ৪ হাজার ৩০০টি গাড়ি ও ভেড়া আমদানি করা হয়েছে। রাজধানী দোহায় আগের মতোই ভিড় জমাচ্ছে বিশ্বের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে নামিদামি লোকজন। ভিড় জমাচ্ছে বিভিন্ন ফুটবল দলের খেলোয়াড়েরা।গত সপ্তাহেই দোহার একটি জমকালো মলে ভক্তদের সঙ্গে সময় কাটিয়েছেন বিখ্যাত ফুটবল দল বার্সেলোনার খেলোয়াড় জেরার্ড পিকে, সার্গিও বাসকেটস ও জর্ডি অ্যালবা।যেখানে অনুষ্ঠিত হবে ২০২২ সালের বিশ্বকাপ ফুটবল টুর্নামেন্ট।

চলমান পরিস্থিতি বিভিন্ন জায়গাই শোভা পাচ্ছে কাতারি পতাকা ও দেশটির ৩৭ বছর বয়সী আমির শেখ তামীম বিন হামাদ আল থানিকে সমার্থন জানিয়ে বিভিন্ন জায়গাই স্বাক্ষরিত হচ্ছে বিশাল সাইনবোর্ডে। তা থেকে বাদ পড়েনি সয়ং বাংলাদেশও। কাতারকে সমর্থন জানিয়ে তৌফিক চৌধুরি নামে এক বাংলাদেশী যুবক জানান,বর্তমান পৃক্ষাপটে ‘আমরা কোনো পার্থক্য অনুভব করছি না।বরং সর্বত্রই একটা উৎসবের আমেজ মনে হচ্ছে।যদিও সৌদি জোটের অবরোদ্ধের কারনে ছোট্র এই দেশটি বিশ্বের কাছে আরো পরিচিতি লাভ করেছে।ভালবাসার নিদর্শন হিসেবে তার দু’হাতে শোভা পাচ্ছে কাতার-বাংলাদেশের পতাকা।

গত জুন মাসের শুরুর দিকে মধ্যপ্রাচ্যজুড়ে সন্ত্রাসবাদ ও উপসাগরীয় দেশগুলোর অভ্যন্তরীণ বিষয়ে হস্তক্ষেপের অভিযোগে কাতারের সঙ্গে সব ধরনের সম্পর্ক ছিন্ন করে কাতারকে একঘরে রাখার পদক্ষেপ নেয় সৌদি আরব, বাহরাইন, সংযুক্ত আরব আমিরাত ও মিসর দেশগুলো। সন্ত্রাসবাদ সমর্থনের অভিযোগ অস্বীকার করে কাতার তার প্রতি অবরোধ আরোপের নিন্দা জানায় এবং সৌদি জোটের অবরোধকে কাতারের সার্বভৌমত্বের প্রতি আক্রমণ বলে অভিহিত করে।

গুরুত্বপূর্ণ ব্যাপার হচ্ছে,গড় মাথাপিছু আয়ের দিক দিয়ে বিশ্বের সবচেয়ে ধনীদেশগুলোর অন্যতম কাতার।ফলে কাতারি জনগণ প্রতিবেশী উপসাগরীয় দেশগুলোর নাগরিকদের চেয়ে তুলনামূলকভাবে বেশি ধনী। কাতারের কেন্দ্রীয় ব্যাংকের গভর্নর শেখ আবদুল্লাহ বিন সৌদ আল থানি জানিয়েছেন, দেশটির রয়েছে ৩৪০ বিলিয়ন বা ৩৪ হাজার কোটি ডলারের রিজার্ভ। এছাড়া নিউইয়র্ক ও লন্ডনের মতো বড় শহরগুলোর আন্তর্জাতিক বিলাসবহুল ব্র্যান্ডগুলোতে কাতারের রয়েছে বিশাল অংকের বিনিয়োগ।

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Close