প্রবাসের গল্পব্রেকিংস্লাইডার

আনন্দ বেদনায় মিশ্রিত প্রবাসীদের ঈদ।

ঈদ মানে আনন্দ।ঈদ মানে খুশি।ঈদ মানে সকল দুঃখ যাতনা ভুলে সুখের ভেলায় ভেসে বেড়ানো।ধনী গরীব সবাই মিলে মিশে এক কাতারে দাঁড়ানো।হৃদয় মননের হিংসা-বিদ্বেস ভুলে গিয়ে বুকে প্রতিটি মুসলিম ভাই একে অন্যের সাথে বুকে মিলানো।এক মুসলমান অপর মুসলমানের সাথে আনন্দ খুশিটাকে ভাগ করে নেওয়া।আর এতেই রয়েছে ঈদের প্রকৃত সুখ।সাম্য মৈত্রি ঐক্যের সুরে গান গেয়ে একে অপরের মাঝে নিজেকে বিলিয়ে দেওয়ার মধ্যেই লুকিয়ে থাকে ঈদ আনন্দেরর সফলতা।নিজেদের মাঝে ভ্রাতৃত্ববোধ সৃষ্টি করে আল্লাহ ও রাসুলের সন্তুষ্টি অর্জন করা।

দেশ ও প্রবাস জীবনের ঈদ উদযাপনের মধ্যে রয়েছে আকাশ পাতাল ফারাক।দেশে পরিবার পরিজনদের সাথে নিয়ে ঈদ আনন্দ উপভোগ করার মজাই আলাদা।মা-বাবা,স্ত্রী-সন্তান,ভাই-বোন সবাইকে নিয়ে ঈদ করা।আর প্রবাসে একাকীত্ব ঈদ করার মাঝে তফাতটুকু একমাত্র প্রবাসীরাই সঠিকভাবে অনুধাবন করতে পারে।আনন্দ বেদনার সংমিশ্রণে প্রতিটি প্রবাসীর ঈদের দিনটি কাটে কেমন যেনো এক ঘোর লাগার মধ্যে।

আসলে প্রবাসীদের ঈদ আনন্দ অনেকটাই তাদের পরিবারের সবার উপর নির্ভর করে।মা-বাবা,স্ত্রী-সন্তান,ভাই-বোনদের খুশি করতে পারলেই বরং তারা বেশি পুলকিত হয়।তাদের সুখটাকেই নিজের সুখ মনে করে লয়।
ঈদ এলেই তারা ব্যস্ত হয়ে পড়ে বাড়িতে কিছু বাড়তি টাকা পাঠানোর জন্য।পরিবারের সবার জন্য নতুন জামা কাপড় বা অন্যান্য ঈদ সামগ্রী কিনে দিতে পরলেই যেনো প্রবাসীরা নিজেকে আনন্দিত গর্বিত মনে করে।আর এই অতিরিক্ত টাকা পাঠাতে যদিও তাদের কষ্ট পরিশ্রমের মাত্রাটা একটু বেড়ে যায় এতে করে তাদের কিচ্ছু আসে যায় না।বরং এই কষ্টটাকে তারা হাসি মুখেই মেনে নেয় শুধু পরিবারের সবার মুখে হাসি ফোটানোর জন্য।তাদের ঈদ আনন্দটাকে আরো বর্ণিল করার জন্য।

প্রবাসের ঈদ কারোর জন্য হয়তবা আনন্দের।কারোর জন্য বিষাদময়।আবার কারোর জন্য আনন্দ বেদনার সংমিশ্রণ।অধিকাংশ প্রবাসীরা এই মহা খুশির দিনে ঈদের নামাজ পড়ে এসে সারাটিদিন রুমে শুয়ে বসেই কাটিয়ে দেয়।বাড়িতে ফোন দিয়ে আপনজনদের সাথে কথা বলেই ঈদ আনন্দটাকে তারা ভাগ করে নেয়।মা-বাবা,স্ত্রী-সন্তানের সাথে কথা বলে মনের ভিতর জমে থাকা কষ্ট ব্যথাটাকে কিছুটা লাঘব করে নেয়।কষ্টের পাহাড় বক্ষে চেপে রেখে সবার সাথে এমন ভাবে হাসি মুখে কথা বলে।বাড়ির কেউ তাদের কষ্টের কথা সামান্যতম বুঝবার উপায় থাকে না।ফোনে কথা বলার সময় মনে হয় আল্লাহর দুনিয়ার এই ঈদের দিনটিতে তারাই বুঝি সবার চেয়ে আনন্দিত,পুলকিত।সত্যিই তো পরিবারের সবার সুখেই যে প্রবাসীরা প্রকৃত সুখ খুঁজে পায়।অপরদিকে প্রবাসীদের হাসিমাখা কণ্ঠ শুনে পুলকিত হয় মা-বাবা,স্ত্রী-সন্তান।

অনেক প্রবাসীরা ঈদের দিনেও কর্মব্যস্ত জীবন কাটায়।কম্পানি তাদের কে ছুটি না দেওয়ায় ঈদের দিনটিও কঠোর পরিশ্রমের মধ্যেই কাটাতে হয়।ঈদের আনন্দ খুশির কথা তো তারা ভাবতেই পারে না।ডিউটি অবস্তায় অনেক কষ্টে চোখের জল সংবরণ করে।বুকের ভিতর চাপা দিয়ে রাখে।এতো দুঃখ কষ্ট যন্ত্রনা হৃদয়ে পুষেও তারা আনন্দ পায় পরিবারের ঈদের খুশির কথা শুনে।

কোন কোন প্রবাসীর ঈদের দিনের আনন্দ খুশিটা ভেসে যায় একাকী রুমে শুয়ে নীরবে নিভৃতে অশ্রু ঝড়ায়ে।অশ্রু ঝরে ফোঁটায় ফোঁটায় আবার কখনো মুষলধারে বৃষ্টির মতোই।তাদের কষ্ট যাতনাগুলো চোখের পানিতে বের হয়ে আসে।ভিজে একাকার হয়ে যায় বালিশ।”না পারে কাউকে কইতে,না পারে সইতে” ঠিক সেই অবস্তা।শুয়ে শুয়ে তারা ভাবে মা-বাবার কথা।ভাবে জীবন সঙ্গীনির কথা।আদরের খোকা খুকির কথা।যতোই ভাবে ততোই আবেগাপ্লুত হয়ে পড়ে।শত চেষ্টা করেও চোখের নদীর অশ্রু বন্যাকে বাঁধ দিতে পারে না।পারেনা নিজেকে শান্ত করতে।ঈদের আনন্দঘন দিনে তাদের এই কষ্টের কথা কেউ জানেনা একমাত্র আল্লাহ্ ছাড়া।

ঈদের দিন প্রবাসীদের মনে ভীষণভাবে দাগ কাটে পেছন স্মৃতিগুলোর কথা স্মরণ করে।মায়ের হাতের রান্না করা ফিন্নি পায়েস খেয়ে ঈদের মাঠে যাওয়া।সহধর্মিণীর প্রেম ভালোবাসায় সিক্ত হওয়া।কলিজার টুকরো খোকা খুকির মায়া জড়ানো আব্বু ডাকটির কথা।তাদের কে নতুন জামা কাপড় পড়িয়ে ঈদগাহে নিয়ে যাওয়ার কথা।এসব হাজারো স্মৃতির কথা ভেবে ভেবে কষ্টের অনলে জ্বলতে জ্বলতে নিজে যেমন দগ্ধ হয়।তেমনি সে ভাবতে থাকে তার মা-বাবা স্ত্রী-সন্তান তাকে ছাড়া ঈদ করতে গিয়ে তারাও কতো কষ্ট ব্যথা হৃদয় মনে পোষণ করে ঈদের দিনটি কাটায়।

অনেক প্রবাসীরা আবার তাদের কষ্টগুলোকে পাত্তা না দিয়ে ঈদের দিন চুটিয়ে আনন্দ করে বেড়ায়।একাকী রুমে বসে না থেকে ছুটে যায় প্রিয় বন্ধু বন্ধবদের বাসায়া।কেউবা বন্ধুদের নিয়ে ঘুরতে যায় সুন্দর থেকে সুন্দরতম কোন লোকেশনে।আড্ডায় আড্ডায় পার করে দেয় পুরো ঈদের দিন।এভাবেই প্রতিটি প্রবাসী বিদেশ বিভূয়ে কাটিয়ে দিচ্ছে মাসের পর মাস,বছরের পর বছর।শুধুমাত্র জন্মভূমির রেমিটেন্স বৃদ্ধি এবং নিজের পরিবারের সুখের আশায়।তাদের ঠোঁটে এক চিলতে হাসি ফুটানোর প্রচেষ্টায়।

লেখক: আনিসুর রহমান

প্রতিনিধি:প্রবাসীকাল ডটকম. মালয়েশীয়া

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

আরও দেখুন...

Close
Close