জাতীয়ব্রেকিংরাজনীতিস্লাইডার

উপজেলায় বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত দেড় শতাধিক

পাঁচ ধাপের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চতুর্থ ধাপ পর্যন্ত বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হতে যাচ্ছেন প্রায় দেড় শতাধিক প্রার্থী। এর মধ্যে চেয়ারম্যান পদেই প্রায় শতাধিক প্রার্থী রয়েছেন। পঞ্চম ধাপ পর্যন্ত এই সংখ্যা দুই শতাধিক ছাড়িয়ে যাবে। আর উপজেলার সংরক্ষিত নারী পদে ইতোমধ্যে এক হাজারের বেশি নারী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হচ্ছেন।
নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানা গেছে, আজ প্রথম ধাপের উপজেলা নির্বাচনে ৮৬টি উপজেলায় ৩১ জন প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। এর মধ্যে চেয়ারম্যান পদে ১৬ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৮ জন এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৭ জন।
আগামী ১৮ মার্চ দ্বিতীয় ধাপে ১৯ জন চেয়ারম্যান, ৫ জন ভাইস চেয়ারম্যান ও ৬ জন মহিলা ভাইস চেয়ারম্যানসহ মোট ৩০ জন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন। ২৪ মার্চ তৃতীয় ধাপে ১২৭ উপজেলার মধ্যে চেয়ারম্যান পদে ২২ জন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৯ জন এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৫ জনসহ ৩৬ জন; আগামী ৩১ মার্চ চতুর্থ ধাপের ১২২ উপজেলার মধ্যে ২১ জন চেয়ারম্যান, ১১ জন ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ১৬ জনসহ ৪৮ জন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হচ্ছেন। পঞ্চম উপজেলা নির্বাচনেও বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জয় পেতে যাচ্ছেন শতাধিক উপজেলা চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান। এর মধ্যে অর্ধশতাধিকই উপজেলা চেয়ারম্যান।
প্রথম ধাপে চেয়ারম্যান পদে যারা নির্বাচিত হয়েছেন: নীলফামারী সদরে শাহিদ মাহমুদ, জলঢাকায় মো. আনসার আলী (মিন্টু), পঞ্চগড়ের বোদায় মো. ফারুক আলম, লালমনিরহাটের পাটগ্রামে রুহুল আমীন বাবুল, সিরাজগঞ্জের কাজীপুরে মো. খলিলুর রহমান সিরাজী, উল্লাপাড়ায় মো. শফিকুল ইসলাম ও সদরে-মোহাম্মদ রিয়াজ উদ্দিন, জয়পুরহাট সদরে-এস এম সোলায়মান আলী ও পাঁচবিবিতে মো. মনিরুল সহিদ মুন্না, নাটোর সদরে মো. শরিফুল ইসলাম রমজান, রাজশাহীর মোহনপুরে মো. আব্দুস সালাম ও বাঘায় মো. লায়েব উদ্দিন, জামালপুরের সরিষাবাড়িতে মো. গিয়াস উদ্দিন পাঠান, মেলান্দহে মো. কামরুজ্জামান, মাদারগঞ্জে মো. ওবায়দুর রহমান বেলাল ও সদরে মোহাম্মদ আবুল হোসেন, নেত্রকোণার কেন্দুয়ায় মো. নুরুল ইসলাম ও সদরে মো. তফসির উদ্দিন খান।
প্রথম ধাপে ভাইস চেয়ারম্যান হলেন যারা: সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে মামুনুর রশীদ লিয়াকত ও উল্লাপাায়-মনিরুজ্জামান পান্না, নাটোর সদরে আব্দুল্লাহ আল সাকী বাকী, জামালপুরের সরিষাবাড়িতে আবুল কালাম আজাদ, মেলান্দহে ডা. ইউনুস আলী, মাদারগঞ্জে হুমাছুন কবীর।
মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ১১ জন: লালমনিরহাটের পাটগ্রামে একমাত্র প্রার্থী স্থানীয় বিএনপি নেত্রী লতিফা আক্তার ও সদরে আওয়ামী লীগের মাছুমা ইয়াসমিন, সিরাজগঞ্জের শাহজাদপুরে-এলিজা খান ও উল্লাপাড়ায় রিজভি ইসলাম কবিতা, নাটোর সদরে কামরুন্নাহার কাজল, রাজশাহীর গোদাগাড়ীতে সুফিয়া খাতুন, মোহনপুরে সানজীদা রহমান, বাগমারায়-নাছিমা আক্তার, জামালপুরের মেলান্দহে জেসমিন আক্তার ও মাদারগঞ্জে সমসাদ আরা রেবা, নেত্রকোণা সদরে তুহিন আক্তার, নাটোর সদরে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে শেখ কামরুন্নাহার কাজল।।
দ্বিতীয় ধাপে নির্বাচিত ৩০ জন: এরমধ্যে উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে ১৯ জন, ভাইস চেয়ারম্যান ৫ জন ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান ৬ একক প্রার্থী রয়েছেন। তারা হলেন, মৌলভীবাজার সদর উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে কামাল হোসন; খাগড়াছড়ি সদর উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে মো. শানে আলম এবং মানিকছড়ি উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে মো. জয়নাল আবেদিন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে তাজুল ইসলাম বাবুল। নোয়াখালীর হাতিয়ায় চেয়ারম্যান পদে মাহবুব মোর্শেদ লিটন ও ভাইস চেয়ারম্যান পদে ওবায়দ উল্যাহ বিপ্লব ও মহিলা ভাইস চেয়ারমান মমতাজ বেগম;
দিনাজপুর সদর উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে এমদাদ সরকার, হাকিমপুরে চেয়ারম্যান পদে হারুন-উর রশিদ, পার্বতীপুরে চেয়ারম্যান পদে হাফিজুল ইসলাম প্রামাণীক, ঘোড়াঘাটে চেয়ারম্যান পদে আব্দুর রাফে খন্দকার শাহানশাহ।
চট্টগ্রামের রাউজানে চেয়ারমান পদে একেএম এহেছানুল হায়দার চৌধুরী বাবুল, সীতাকুন্ডে চেয়ারমান পদে এসএম আল মামুন, স›দ্বীপে চেয়ারমান পদে মোঃ শাহজাহান বিএ, রাঙ্গুনিয়ায় চেয়ারমান পদে খলিলুর রহমান চৌধুরী, মীরসরাইয়ে চেয়ারমান পদে মোঃ জসিম উদ্দিন এবং হাটহাজারীতে চেয়ারমান পদে এসএম রাশেদুল আলম, আনোয়ারায় চেয়ারমান পদে তৌহিদুল হক চৌধুরী,
রাঙ্গামাটির কাপ্তাইয়ে চেয়ারম্যান পদে মো. মফিজুল হক ও লংগদুতে চেয়ারম্যান পদে আবদুল বারেক সরকার; পাবনা সদর উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে মোশাররফ হোসেন, ভাইস চেয়ারম্যান শাওয়াল বিশ্বাস ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে মোছা: শামসুন্নাহার রেখা; সুজানগরে চেয়ারম্যান পদে মো: শাহিনুজ্জামান শাহিন। সিলেটের কানাইঘাটে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে মোছা. খাদিজা বেগম। ফরিদপুর জেলার ফরিদপুর সদর ও আলফাডাঙ্গা, বোয়ালমারি, নওগাঁ জেলার নওগা সদর, ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থীরা বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় পাশ করছেন প্রার্থীরা।
৩য় ধাপে পাস ৩১ জন: তৃতীয় ধাপের ১২৭ উপজেলায় নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে ২২, ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৪ এবং মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ৫ জন। এর মধ্যে রয়েছেন, রংপুরের গঙ্গাচড়ায় চেয়ারম্যান পদে রুহুল আমিন; মাদারীপুরের শিবচরে চেয়ারম্যান পদে সামসুদ্দিন খান, ভাইস-চেয়ারম্যান পদে আতাহার হোসেন ব্যাপারী, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ফাহিমা বেগম; কালকিনিতে চেয়ারম্যান পদে মীর গোলাম ফারুক।
নরসিংদির পলাশে চেয়ারম্যান পদে সৈয়দ জাবেদ হোসেন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে কারীউল্লাহ সরকার ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে সেলিনা আক্তার; কক্সবাজারের সদরে চেয়ারম্যান পদে কাইসারুল হক জুয়েল, উখিয়ায় চেয়ারম্যান পদে অধ্যক্ষ হামিদুল হক চৌধুরী ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে কামরুন্নেছা বেবী, কুতুবদিয়ায় চেয়ারম্যান পদে অ্যাডভোকেট ফরিদুল ইসলাম চৌধুরী।
চাদঁপুরের মতলব উত্তরে চেয়ারম্যান পদে এমএ কুদ্দুস, মতলব দক্ষিণে চেয়ারম্যান পদে এইচএম গিয়াস উদ্দিন, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে ফেরদৌসী বেগম রুনু, হাজীগঞ্জে চেয়ারম্যান পদে গাজী মো. মাঈনুদ্দিন, ভাইস চেয়ারম্যান পদে গোলাম ফারুক মুরাদ।
বরিশাল সদর উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে সাইদুর রহমান রিন্টু, বানারীপাড়ায় চেয়ারম্যান পদে গোলাম ফারুক, নারী ভাইস-চেয়ারম্যান পদে সৈয়দা তাসমিমা হোসন, আগৈলঝারায় চেয়ারম্যান পদে আবদুর রইচ সেরনিয়াবাত, ভাইস চেয়ারম্যান মো. রফিকুল ইসলাম তালুকদার ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে মলিনা রানী রায়; গৌরনদীতে চেয়ারম্যান পদে সৈয়দা মনিরুন্নাহার মেরী, বাকেরগঞ্জে চেয়ারম্যান পদে শামসুল আলম চুন্নু এবং মুলাদী উপজেলায় চেয়ারম্যান পদে তরিকুল হাসান খান মিঠু; বাবুগঞ্জ উপজেলায় নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে ফারজানা বিনতে ওহাব।
শরীয়তপুর সদরে চেয়ারম্যান পদে আবুল হাশেম তপাদার, নড়িয়ায় চেয়ারম্যান পদে এ কে এম ইসমাইল হক, ডামুড্যায় চেয়ারম্যান পদে মো. আলমগীর হোসেন, জাজিরায় চেয়ারম্যান পদে মোবারক আলী সিকদার, ভেদরগঞ্জ চেয়ারম্যান পদে হুমাছুন কবির মোল্লা, ভাইস চেয়ারম্যান পদে আব্দুল মান্নান বেপারী ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে আকলিমা বেগম লিপি।
গাজীপুরের কালীগঞ্জে চেয়ারম্যান পদে মো. মোয়াজ্জেম হোসেন পলাশ ও ভাইস চেয়ারম্যান পদে মো. মাকসুদ-উল আলম খান।
চতুর্থ ধাপে ৪৮ জন: এদের মধ্যে ২১ জন চেয়ারম্যান, ১১ জন ভাইস চেয়ারম্যান এবং ১৬ জন নারী ভাইস চেয়ারম্যান পদে মোট ৪৮ জন একক প্রার্থী রয়েছেন। এদের মধ্যে রয়েছেন ঢাকার কেরানীগঞ্জে চেয়ারম্যান পদে শাহীন আহমেদ ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান আলো বেগম। ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবায় চেয়ারম্যান পদে রাশেদুল কাওসার ভূঁইয়া জীবন ও ও আখাউড়ায় চেয়ারম্যান পদে আবুল কাশেম ভূঁইয়া। বাগেরহাটের মোংলায় চেয়ারম্যান পদে আবু তাহের হাওলাদার, ফেনীর সোনাগাজীতে চেয়ারম্যান পদে জহির উদ্দিন মাহমুদ, দাগনভূঞায় চেয়ারম্যান পদে দিদারুল কবির রতন ও পরশুরামে চেয়ারম্যান পদে কামাল মজুমদার; মেহেরপুরের মুজিবনগরে চেয়ারম্যান পদে জিয়া উদ্দিন বিশ্বাস, সদরে অ্যাডভোকেট ইয়ারুল ইসলাম; বগুড়ার শেরপুরে চেয়ারম্যান পদে মজিবর রহমান মজনু, ভাইস চেয়ারম্যান পদে গোলাম আম্বিয়া; আদমদীঘিতে চেয়ারম্যান পদে সিরাজুল ইসলাম খান রাজু।
পঞ্চম ও শেষ ধাপের ভোট হবে ১৮ জুন: পঞ্চম ধাপে প্রায় শতাধিক প্রার্থী বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় হতে যাচ্ছেন। এর মধ্যে অর্ধশতাধিক চেয়ারম্যান প্রার্থী রয়েছেন বলে জানা গেছে।
সংরক্ষিত নারী সদস্য ১০০৫ জন: উপজেলার সংরক্ষিত নারী আসনের উপনির্বাচনে এবার ১ হাজার ৫ জন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছেন।
নির্বাচন কমিশন সূত্র জানায়, ৪৩০ উপজেলায় ১ হাজার ৪৭৬ নারী সদস্য পদে নির্বাচন হওয়ার কথা থাকলেও এসব পদের ১ হাজার ৫ জন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হন। ২১০টির মতো পদে কেউ মনোনয়নপত্র জমা দেয়নি। বাকি ২০০টি নারী সদস্য পদে ভোট হয়।
নির্বাচন কমিশন এসব উপজেলায় ১৪৭৬ নারী সদস্য পদে ভোটের তফসিল দিয়েছিল। এছাড়া নানা জটিলতায় ৬১টি নারী সদস্য পদে ভোট স্থগিত রয়েছে। যেসব পদে মনোনয়নপত্র জমা পড়েনি, সেসবের জন্য পরে নতুন করে ভোটের তারিখ দেয়া হবে। চেয়ারম্যান, ভাইস চেয়ারম্যান ও মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান সরাসরি ভোটে নির্বাচিত হলেও পরোক্ষ ভোটে নির্বাচিত হন সংরক্ষিত নারী সদস্যরা। ইউনিয়ন পরিষদের সংরক্ষিত আসনের নারী সদস্য এবং পৌরসভার সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলররা তাদের মধ্য থেকে একজনকে ভোট দিয়ে উপজেলা পরিষদের সদস্য নির্বাচিত করেন। আর এই সদস্যদের সংখ্যা উপজেলায় ইউনিয়ন ও পৌরসভার মোট নারী সদস্যের এক-তৃতীয়াংশের সমান

সূত্র:ইনকিলাব

এ সম্পর্কিত অন্যান্য সংবাদ

মন্তব্য করুন

আপনার ই-মেইল এ্যাড্রেস প্রকাশিত হবে না। * চিহ্নিত বিষয়গুলো আবশ্যক।

Close